1. admin@noakhalinews24.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:১৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
নোয়াখালীতে গত ২৪ ঘন্টায় ৭২ জন করোনা রোগী শনাক্ত। নোয়াখালী সদর-১১, সুবর্ণচর-০১, হাতিয়া-০০, বেগমগঞ্জ-২১, সোনাইমুড়ি-১৯,চাটখিল-০৭,সেনবাগ-১৩,কোম্পানীগঞ্জ-০০ এবং কবিরহাট-০০ জন।

বেগমগঞ্জ একলাশপুরে মাদ্রাসায় খাদ্যে ‘বিষক্রিয়া’, এক শিশুর মৃত্যু

  • মঙ্গলবার, ৩ আগস্ট, ২০২১
  • ১২৮ বার পড়া হয়েছে

নিউজ ডেস্কঃ নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একটি মাদ্রাসা ও এতিমখানায় রাতের খাবার খা্ওয়ার পর অসুস্থ হয়ে ১ শিশু শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। ওই খবার খাওয়া আরও ১৭ জনকে অসুস্থ অবস্থায় নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল সোমবার রাতে উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের মদিনাতুল উলুম ইসলামিয়া মাদ্রায় এই ঘটনা ঘটে।

মাদ্রাসা সূত্র জানায়, মারা যাওয়া শিশুটির মিশন নূর হাদি। সে ওই মাদ্রাসার নূরানী শাখার ছাত্র। তার বয়স আনুমানিক ১০ বছর। আর অসুস্থ শিক্ষার্থীদের বয়সও ৯ থেকে ১০ বছরের মধ্যে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিনের এশার নামাজ শেষ করে রাত ৯টার দিকে মাদ্রাসার একজন শিক্ষকসহ রাতের খাওয়ার খায় নূরানীর শাখার প্রায় ১৮জন শিশু শিক্ষার্থী। খাওয়ার শেষ পর্যায়ে এসে একজন একজন করে সবাই বমি করতে শুরু করে। একপর্যায়ে সবাই বমি করতে শুরু করলে মাদ্রাসা কৃর্তপক্ষ স্থানীয় একজন চিকিৎসকে মাদ্রাসায় নিয়ে আসেন। পরে তিনি তাদের অবস্থা দেখে জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেন।

অসুস্থদের সঙ্গে আসা মাদ্রাসার এক শিক্ষার্থী বলেন, নূরানীর ছাত্ররা যখন ভাত খাচ্ছিল তখন আমরা নামাজ পড়ছিলাম। তাদের চিৎকার শুনে আমরা এসে দেখি সবাই বমি করছে। ওই শিক্ষার্থী জানায়, দুপুরে গরুর মাংস রান্না হয়েছিল। সেখান থেকে একভাগ তরকারি রেখে দেওয়া হয়েছিল। সেই তরকারি খাওয়ার পরই সমস্যা। কিন্তু দুপুরে কারও সদস্যা হয়নি।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. খলিলুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ইসমাইল হোসেনের সাথে কথা বলে তিনি জানতে পারেন, রাতে ভাতের সাথে বাচ্চাদের গরুর মাংস দেওয়া হয়। যা দুপুরেও তারা খেয়েছিল। স্থানীয় এক মহিলা তাদের খাওয়ারগুলো রান্না করেন।

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. সৈয়দ মহিউদ্দিন আব্দুল আজিম জানান, হাসপাতালে ১৮জন শিশু শিক্ষার্থীকে নিয়ে আসার পর একজন মারা যায়। অন্য শিশুদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। দুই শিশুর অবস্থা আংশকাজনক। নোয়াখালী জেলা প্রশাসক মো খোরশেদ আলম খান ও সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার রাতেই হাসপাতালে গিয়ে শিশুদের খোঁজ খবর নেন। এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য চিকিৎসকদের পরামর্শ দেন।

ভাল লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর
© noakhalinews24 2021 All rights reserved
Theme Customized By BreakingNews